বঙ্গবন্ধু

বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক বাংলায় এবং বাংলাদেশি শিল্পীদের নিয়ে হবে

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী আগামী বছর। সে উপলক্ষে বাংলাদেশ-ভারত সরকারের প্রযোজনায় নির্মিত হতে যাচ্ছে তাঁর বায়োপিক। সিনেমাটির অগ্রগতি নিয়ে কথা বলতে ঢাকায় এসেছেন পরিচালক শ্যাম বেনেগাল। 

ভারতীয় এ নির্মাতা আজ মঙ্গলবার বিএফডিসিতে সিনেমার প্রস্তুতি সংক্রান্ত এক বৈঠকে অংশ নেন। সেখানে তিনি জানালেন, বায়োপিকের ভাষা হবে বাংলা এবং অধিকাংশ অভিনয়শিল্পী হবে এ দেশি।

শ্যাম বেনেগাল বলেন, ‘আমাদের আজকের মিটিং  প্রি-প্রডাকশনের অংশ। এখানে আমরা বাংলা ভাষায় সিনেমাটি নির্মাণের ব্যাপার সবাই একমত হয়েছি।’

সিনেমাটি যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হলেও এর অধিকাংশ অভিনয় শিল্পী বাংলাদেশি হবে। তিনি বলেন, ‘আমরা শুটিং বাংলাদেশেই করতে চাই। এর জন্য এখানকার সুযোগসুবিধাগুলো দেখবো।’

বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের দৃশ্যধারণের জন্য অনেকগুলো সেট নির্মাণ করতে হবে। সেটি কবিরপুর বঙ্গবন্ধু ফিল্ম সিটিতে করার পরিকল্পনা রয়েছে। এর জন্য শ্যাম বেনেগাল আজ বিকেলে সেখানে যাবেন।

প্রজেক্টটির শুরু থেকে বলা হচ্ছে এতে মূল পরিচালকের সহযোগী হিসেবে একজন বাংলাদেশি পরিচালক থাকবে। তবে শ্যাম বেনেগাল বললেন, ‘একটা প্রাণীর দুই মাথা থাকলে কেমন দেখায়।’

তিনি জানালেন বর্তমানে সিনেমাটির প্রি-প্রডাকশনের কাজ চলছে।  যেহেতু সিনেমাটি বাংলায় নির্মিত হবে এবং তিনি বাংলা বুঝেন না, সেহেতু তাঁকে সহয়তা করার জন্য একজন ইতিহাসবিদ এবং ভাষাবিদ দেওয়া হবে।

সকালে এগারোটায় বিএফডিসির এমডির সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম, বিএফডিসির এমডি লক্ষণ চন্দ্র দেবনাথ, ভারতীয় চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের ডিজি, বাংলাদেশে ভারতীয় দূতাবাসের প্রতিনিধি, বাংলাদেশ টেলিভিশনের ডিজি হারুন-অর-রশিদ, তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আজহারুল হক, বিজ্ঞাপন ব্যক্তিত্ব গাউসুল আলম শাওন, বিশিষ্ট পরিচালক মহিউদ্দিন শাকের, মোরশেদুল ইসলাম ও নাট্যজন মামুনুর রশিদ।

এদিকে বৈঠকে উপস্থিত চিত্রপরিচালক মোরশেদুল ইসলাম বলেন, ‘চলচ্চিত্রের ভাষা সারা বিশ্বের দর্শকের কথা চিন্তা করে ইংরেজি করার কথা উঠেছিল। কিন্তু আমরা বলেছি যেহেতু ভাষা আন্দোলন থেকে এদেশের ইতিহাসের শুরু তাই এর ভাষাও বাংলা হতে হবে। শ্যাম বেনেগাল সাহেব সম্মত হয়েছেন এতে।’

তিনি আরও বলেন, ‘তিনি শুধু এ দেশি অভিনয়শিল্পী না এ দেশের টেকনিশিয়ান নিয়ে কাজ করবেন। তবে প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক কলা-কুশলী থাকবে।’

মোরশেদুল ইসলাম জানালেন, শ্যাম বেনেগাল সকালে বিএফডিসির বিভিন্ন ফ্লোর ও সুযোগ-সুবিধাদি পরিদর্শন করেন। তিনি এখানে সেকল সুবিধা রয়েছে সেগুলো বাইরে থেকে না নেওয়ার ব্যাপারে ইচ্ছা পোষণ করেছেন।

তিনি আরও জানান, বর্তমানে স্ক্রিপ্টিং ও গবেষণার কাজ চলছে। শ্যাম বেনেগাল বলেছেন তিনি আগামী বছর বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের আগে শুটিং শেষ করতে পারবেন। তবে ২০২১ সালের আগে সিনেমাটি মুক্তি দেওয়া কষ্টকর হয়ে যাবে।

সকলের প্রশ্ন বায়োপিক বঙ্গবন্ধুর জীবনের কোন অংশ দেখানো হবে? এ নিয়ে মোরশেদুল ইসলাম বলেন, ‘বায়োপিকের শুরুতে বাংলাদেশের অভ্যুদয় দেখিয়ে এরপর ফ্ল্যাশব্যাকে ১৯৪০ সাল থেকে বঙ্গবন্ধুর বাঙ্গালীর জন্য সংগ্রাম, আন্দোলন এবং সবশেষ ১৫ আগস্ট তাঁর হত্যাকান্ড দেখানোর পরিকল্পনা রয়েছে।’

উল্লেখ্য সোমবার  শ্যাম বেনেগাল দুই দিনের সফরে ঢাকার আসেন। ফিরে যাবেন ৪ এপ্রিল। সফরে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও দেখা করবেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর  বায়োপিকের সবশেষ অবস্থা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীকে জানাবেন।

Related Post

ahmed zaman shimul

বিনোদন সাংবাদিক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *