বাপ্পীর অনন্য মহানুভবতা

বর্তমান প্রজন্মের প্রতি একটা অভিযোগ তারা একজন আরেকজনের বিপদে এগিয়ে আসে না। রাস্তায় কেউ দুর্ঘটনার শিকার হয়ে পড়ে থাকলেও তারা কেউ ফিরেও তাকায় না। কিন্তু কিছু কিছু মানুষ থাকেন যারা সবসময় স্রোতের বিপরীতে চলেন। এমনই এক উদাহরণ সৃষ্টি করলেন নায়ক বাপ্পী চৌধুরী।

মহাখালী ফ্লাইওভারে ৮ ডিসেম্বর সন্ধ্যার ঘটনা। সড়ক দুর্ঘটনার শিকার এক নারী রক্তাক্ত হয়ে রাস্তায় পরে আছেন। কেউ সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসছেন না। এমন সময় দুজন মোটর সাইকেল আরোহী তাকে কষ্ট করে ফুটপাতে তুলেন।

তারা মহিলাকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য সিএনজি খুঁজছিলেন, পাচ্ছিলেন না। এমন সময় তাদের দেখেন নায়ক বাপ্পী। তিনি পাশ্ববর্তী কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি করান মহিলাকে।

বাপ্পী বলেন, ‘বনানীতে একটি কাজে যাওয়ার জন্য মহাখালী ফ্লাইওভারে গাড়ি নিয়ে উঠে দুইজন বাইকারকে মহিলাসহ দেখতে পাই। তাদের জিজ্ঞেস করলে বলেন, একটি বাস ধাক্কা মেরে চলে গেছে। ওনাকে হাসপাতাল নেওয়া দরকার। তারা কিছুটা ইতস্তত করছেন, আমার গাড়ি ব্যবহারের কথা বলবেন কিনা! তখন আমিই বলি, মহিলাকে গাড়িতে তুলতে। দ্রুত তাকে তখন হাসপাতালে আনি। আসলে সবার আগে মানুষ। তারপর অন্য কাজ। আমি যদি কারও দুঃসময়ে এগিয়ে আসি, তাহলে আমার দুঃসময়েও কেউ এগিয়ে আসবেন- এই বিষয়টি সবার মাথায় রাখা উচিত।’

বাপ্পী জানান, মহিলার বাসা রাজধানীর আফতাবনগরে। তার মাথা ও হাতে বেশ ভালো জখম হয়েছে। ঘণ্টাখানেক অপারেশন থিয়েটারে রাখার পর সেলাই করা হয়েছে।

হাসাপাতালে ঘটনার সময় যমুনা টিভির সাংবাদিক হাসান ছিলেন। এখানে উল্লেখ্য তিনিই প্রথম বাপ্পীর মানবিকতার এ খবরটি সবার সম্মুখে আনেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *